linux কী? জেনে নিন লিনাক্স সম্পর্কে ৫টি ভুল ধারণা

আসসালামু আলাইকুম, আশা করি সকলেই ভালো আছেন, সুস্থ আছেন। আজকের আর্টিকেলে আমি আলোচনা করতে যাচ্ছি "Linux (লিনাক্স)" নিয়ে। শব্দটির সাথে অনেকেই পরিচিত হয়ে থাকতে পারেন, কিংবা কারও কাছে নতুন লাগতে পারে। নতুনদের মনে প্রশ্ন জাগা তাই স্বাভাবিক, "লিনাক্স কী?"; তাই লিনাক্স নিয়ে আজ থাকবে কিছু বেসিক আলোচনা এবং কমন কিছু ভুল ধারণা, যা সকলেরই উপকারে আসবে বলে মনে করি।

What is Linux? Here are 5 misconceptions about Linux. linux কী? জেনে নিন লিনাক্স সম্পর্কে ৫টি ভুল ধারণা - Tips Tune


Linux হচ্ছে একটি Kernel (কার্নেল), যেটি Linus Torvalds (লিনাস টরভল্ডস) নামক একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ১৯৯১ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর প্রথম প্রকাশ করেছিলেন। এছাড়া এটি GNU/Linux (গ্নু/লিনাক্স‌) নামেও পরিচিত।

Linux হচ্ছে অপারেটিং সিস্টেমের একটি কোর পার্ট। একটি অপারেটিং সিস্টেম যখন হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যারের মাঝে সংযোগ তৈরি করে, সংযোগটি হয় কার্নেলের মাধ্যমে। এবং, Linux হচ্ছে তেমনই একটি কার্নেল।

লিনাস Linux তৈরির পূর্ব থেকেই GNU Project (গ্নু প্রজেক্ট‌)‌ নামক একটি প্রতিষ্ঠান সম্পূর্ণ ফ্রি একটি অপারেটিং সিস্টেম তৈরি নিয়ে কাজ করছিল। তারা তাদের অপারেটিং সিস্টেমের জন্য Linux কার্নেলটির ব্যবহার করে। তখন নতুন একটি অপারেটিং সিস্টেম তৈরি হয়, যার নাম হয় GNU/Linux


এখন আলোচনা করবো লিনাক্স নিয়ে কম্পিউটার ইউজারদের বেশ কিছু ভুল ধারণা নিয়ে-

১। অনেকেই মনে করেন, লিনাক্স একটি অপারেটিং সিস্টেম। এমনকি গুগলের নলেজ প্যানেলেও বলা হচ্ছে যে, লিনাক্স একটি অপারেটিং সিটেম। কিন্তু এটি অপারেটিং সিস্টেমের একটি কোর পার্ট মাত্র, সরাসরি কোন অপারেটিং সিস্টেম নয়। এটি হচ্ছে লিনাক্স কার্নেলকে ভিত্তি করে গ্নু/লিনাক্স নামক অপারেটিং সিস্টেম। তবে এটি উল্লেখ না করলেই নয় যে, সকল লিনাক্স কিন্তু গ্নু বেজ না। ঝয়তো এমনই বিভিন্ন কারণে কিংবা সকলেই সহজভাবে নামটি বলতে গ্নু/লিনাক্স এর বদলে শুধু লিনাক্স ওএস বলে/ভেবে থাকেন।

২। অনেকেই ধারণা করেন, লিনাক্স বেজড ওএস অন্যান্য অপারেটিং সিস্টেমের থেকে কঠিন হয়ে থাকে। কিংবা এটি সকলের দ্বারা ব্যবহারযোগ্য নয়, কোডিং জানতে হবে এটি ব্যবহার করতে চাইলে, ইত্যাদি। এটি সম্পূর্ণ একটি ভুল ধারণা। লিনাক্সের এমন অনেক ডিস্ট্রিবিউশন রয়েছে, যেগুলো প্রায় উইন্ডোজ ওএসের মতোই। Pop!_OS, Mint, Ubuntu এগুলো যেকোন সাধারণ ব্যক্তিও ব্যবহার করতে পারবেন। প্রোগ্রামার টাইপ ইউজারদের দ্বারা এই ওএসটি ব্যবহার হওয়ায় সকলের মাঝে এমন ভুল ধারণা/ভ্রান্তি তৈরি হয়ে থাকে যে, এটির ব্যবহার তুলনামূলক কঠিন। তবে যে কেও লিনাক্স ব্যবহার করতে পারবেন খুব সহজভাবেই এবং বর্তমানে সকলের কাছেই লিনাক্সের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

৩। লিনাক্স নিয়ে অন্য একটি ভুল ধারণা হলো যে, লিনাক্সে কোন ভাইরাস নেই! সকলের ধারণা হয়ে থাকে, ভাইরাস শুধু উইন্ডোজ ওএসেই থাকতে পারে। ২১ শতকের শুরুর দিকে লিনাক্স খুব বেশি জনপ্রিয় ছিলোনা বা ইউজারও বেশি ছিলনা। কিন্তু বর্তমানে এটি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে, পাশাপাশি প্রোগ্রামার, সুপার কম্পিউটার, অর্গানাইজেশন তারা তাদের কম্পিউটারে এই ফ্রি ওএসটি ব্যবহার করছে। জনপ্রিয়তা ও ইউজার বৃদ্ধির সাথে সাথে তাই এখন লিনাক্সের জন্যও ভাইরাস তৈরি করা হয়ে থাকে। যেহেতু পূর্বে লিনাক্সের জন্য ভাইরাস তৈরি হতোনা, তাই অনেকের মনেই ভুল ধারণাটি থাকে যে লিনাক্সে ভাইরাস এন্ট্রি করতে পারেনা/ভাইরাস নেই। উইন্ডোজ ওএসের মতো অধিক পরিমাণে ভাইরাস তৈরি করা না হলেও লিনাক্সের জন্যও ভাইরাস তৈরি হয়, এবং লিনাক্সের জন্য এন্টিভাইরাস সফটওয়্যারও তৈরি হয় এখন। তবে লিনাক্স অন্যান্য ওএস থেকে বেশ সিকিউর একটি অপারেটিং সিস্টেম।

৪। লিনাক্স নিয়ে অনেকের মাঝেই একটি ভুল ধারণা রয়েছে যে, লিনাক্সে পর্যাপ্ত পরিমাণে সফটওয়্যার বা অ্যাপ্লিকেশন নেই। এটি সম্পূর্ণ একটি ভুল ধারণা। কারণ, আমরা সাধারণত ম্যাক ওএস/উইন্ডোজে সে সকল সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকি, সেগুলির অধিকাংশেরই এখন লিনাক্স ভার্সন রয়েছে। এছাড়াও, যেগুলি সফটওয়্যারের লিনাক্স ভার্সন নেই সেগুলিরও অল্টার্নেটিভ ভার্সন লিনাক্সে রয়েছে। তাই লিনাক্সে পর্যাপ্ত পরিমাণে সফটওয়্যার বা অ্যাপ্লিকেশন নেই, এমনটি ভাবার কোন কারণ নেই। এমনকি, লিনাক্সের ওএসের মতোই তাদের সফটওয়্যারগুলিও ফ্রি হয়ে থাকে। ম্যাক ওএস/উইন্ডোজের মতো তাদের অ্যাপ্লিকেশনের জন্য পৃথকভাবে অর্থ প্রদান করতে হয়না।

৫। সর্বশেষ ভুল ধারণাটি হলো, লিনাক্সে গেইম খেলা যায়না। কিন্তু লিনাক্সেও এখন গেইম খেলা যায়। কিছুদিন পূর্বেও বিভিন্ন ইস্যুর জন্য লিনাক্সে গেইম সাপোর্ট করাতে সমস্যা হতো, কিন্তু বর্তমানে হার্ডওয়্যার কোম্পানীগুলো লিনাক্সের জন্য সাপোর্ট বাড়ানোয় সমস্যাটির সমাধান হচ্ছে। এমনকি অনেক গেইম ডেডেলপারও রয়েছেন, যারা লিনাক্স নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়াও লিনাক্স কমিউনিটির অনেকেই অন্যান্য ওএসের গেইমগুলিকে মডিফাই করে লিনাক্স ভার্সনে রুপান্তরিত করছেন। তাই এখন লিনাক্সে সহজেই গেইম খেলার সুযোগ বাড়ছে এবং ধীরে ধীরে লিনাক্সের গেমিং আরও ডেভেলপ হচ্ছে।

বর্তমানে লিনাক্সের ৬০০+ Distros রয়েছে। এই Distros-গুলো মূলত হচ্ছে লিনাক্সের ভার্সন। এবং সবগুলো ভার্সনই সক্রিয় রয়েছে! আরও একটি ইন্টারেস্টিং ফ্যাক্ট হচ্ছে যে, লিনাক্সের কার্নেলের উপর বেস করেই তৈরি হয়েছে অ্যানড্রয়েডের কার্নেল। তাই আমরা যেই অ্যানড্রয়েড ফোন ব্যবহার করে থাকি, তার কোর হচ্ছে মূলত লিনাক্স। 

আমাদের আজকের আলোচনা এখানেই শেষ হলো, আশা করি সকলেই লিনাক্স সম্পর্কে নতুন কিছু জানতে পেরেছেন। টিপসটিউনের সাথে থাকবেন, আমাদের পোস্ট শেয়ার করবেন এবং যেকোন সমস্যা আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন।


লিখেছেন: আব্দুল্লাহ আন নাহিয়ান


Post a Comment

Thank you for your valuable feedback. We will review your feedback soon.

Previous Post Next Post