বাংলা টাইপফেস ডিজাইন, ফন্ট ডেভেলপমেন্ট কোর্স এবং আমার কিছু কথা - Tips Tune

 ফন্টবিডি ‘র উদ্যোগে বাংলা টাইপফেস ডিজাইন এবং ফন্ট ডেভেলপমেন্ট কোর্স চালু করা হয়েছে। ইতিপূর্বে এ ধরনের কোর্স কেউ চালু করেননি। বাংলা ফন্ট ডেভেলপমেন্ট রিলেটেড আল মামুন হোসেনের কিছু ভিডিও ইউটিউবে পাওয়া যায়। সেগুলোতে ফন্ট ডেভেলপমেন্টের বেসিক বিষয়ে ধারণা দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া, সেই ভিডিওগুলো কেবল ইউনিকোড ফন্ট ডেভেলপ সম্পর্কে। ফলে, অভিজ্ঞ ডেভেলপারের পৃষ্ঠপোষকতা ব্যতীত বাংলা ফন্ট ডেভেলপ করাটা প্রায়ই অসম্ভব ছিল। আবার সংকীর্ণমনা ডেভেলপারগণ পূর্বপরিচিত ব্যতীত অন্য কাউকে সহজেই ফন্ট ডেভলপ শিখাতেন না। ফন্টবিডি ’র পক্ষ থেকে আয়োজিত উদ্যোগটিকে আমি সাধুবাদ জানাই।

Bangla typeface design, font development course and some of my words. বাংলা টাইপফেস ডিজাইন, ফন্ট ডেভেলপমেন্ট কোর্স এবং আমার কিছু কথা - Tips Tune


এবার কিছু তিক্ত কথা এবং প্রশ্নের উত্তর প্রদান করব। আক্রোশ বসন্ত অনেকেই বলছেন: ফন্ট ডেভেলপমেন্ট কোর্স ফ্রিতে না করিয়ে কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে? তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, আপনি বা আপনারা আপনাদের ফাউন্ড্রির ডিজাইনার বা পরিচিত লোক ব্যতীত স্বার্থ ছাড়া বাইরের কাউকে কখনো বাংলা ফন্ট ডেভেলপ শিখিয়েছেন? আমার এমন ও ফন্ট ফাউন্ড্রির ব্যাপারে জানা আছে যারা দীর্ঘদিন যাবত অন্য দেশগুলোর অগ্রযাত্রা রুদ্ধ করার পাঁয়তারা করছে। সেই ফাউন্ড্রির জনৈক ডিজাইনারের কাছ থেকে সুকৌশলে ব্রেনওয়াশ করানোর গল্প শুনেছি। হালাল উপায়ে কেউ যখন উপার্জন করতে চায় তখন তাকে বাধা দেওয়া সমীচীন নয়। এটা কখনোই ভদ্রলোকের কাজ হতে পারে না। আপত্তি থাকলে আপনারা স্বার্থ ব্যতীত সর্বজনীন ফ্রি ফন্ট ডেভেলপমেন্ট কোর্স চালু করতে পারেন। তবে বাস্তবতা হলো এই, স্বার্থ ছাড়া কেউ কাউকে কিছুই শেখায় না। 

রক্তের বিনিময়ে অর্জিত ভাষার অক্ষর এর সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য যদি টাকা নিতে হয় তাহলে তাদের ফন্ট না করাটাই ভালো।

খলনায়কের ভূমিকায় অবতীর্ণ হওয়া অবৈধ পেইজের এডমিন বারবার এ কথাটি ভুলে যান যে, তিনি মূলত একজন চোর। কথায় আছে, চোর না শুনে ধর্মের বাণী। বিগত দিনগুলো পর্যবেক্ষণ করে এটাই বুঝতে পেরেছি, সে নিজে একজন ডেভেলপার বা তার সাথে এক জোট হয়ে কেউ কাজ করছি। তবে, লোক চক্ষুর আড়ালে থেকে নব্য প্রতিষ্ঠিত ফন্ট ফাউন্ড্রিগুলোকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাচ্ছে কোনো এক অজ্ঞাত ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর ইশারায়। আমরা অপ্রকাশিত ফন্ট “আবির” লিক হতে দেখেছি। আরও দেখেছি বর্ণ৫২ ‘র বেশ কিছু ফন্ট থেকে গুরুত্বপূর্ণ কিছু ইনফরমেশন মুছে ফেলতে। ফলে, সন্দেহের তীর কোনো এক দিকে ছুটছে। অন্যের ফন্টের উপর নির্ভর করে সেগুলোকে নিজের সম্পত্তি মনে করাটা বোকামি ছাড়া কিছুই না। তার ভাব দেখে মনে হয়, প্রিমিয়াম ফন্টগুলো তার নিজস্ব সম্পত্তি। যদি হয় তাহলে সেও ফন্ট বিল করে ফ্রিতে বিতরণ করুক। 

এখন প্রশ্ন করতে পারেন ফাউন্ড্রিগুলো কেনো প্রিমিয়াম ফন্ট প্রকাশিত করে। সকল ফন্টের মত প্রিমিয়াম ফন্টগুলোও কেন ফ্রিতে বিতরণ করা হয় না? একটি প্রতিষ্ঠান উন্নতি, অগ্রগতি এবং সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য অর্থের চাহিদা রয়েছে। তদ্রূপ, প্রতিটি ফাউন্ড্রিরও চাহিদা রয়েছে। আর চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে তুলনামূলক আকর্ষণীয় এবং সেরা ফন্টগুলো কে প্রিমিয়াম ফন্ট হিসেবে সামান্য মূল্যে বিক্রি করেন। এতে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার পাশা-পাশি ডিজাইনার এবং ডেভেলপারদেরকে সেখান থেকে সম্মানী প্রদান করেন। যেখানে upwork এর মত সাইটে একজন freelancer ঘণ্টা হিসেবে 10$  (৮৫০ ৳) নেয়। সেখানে আমাদের ডিজাইনাররা প্রতিদিন ৮-২০ ঘণ্টা করে কাজ করে ৫০০ টাকার মত আয় করতে সক্ষম হয়। আর একটি ইউনিক ফন্ট ডিজাইন + ডেভেলপ করতে ১৫ দিনেরও বেশি সময় লাগে। সে হিসেবে সময়টুকু অন্য কাজে ব্যয় করলে স্বাভাবিকভাবেই প্রায় ৭৫০০ টাকার মত ইনকাম করতে পারে। cost  পরে, লাভ করতে গেলে আরও ২৫০০ টাকা লাগে। সেখানে সবকিছু কিভাবে ফ্রি হয়ে যায়। তা আমার বুঝে আসে না।

Post a Comment

Thank you for your valuable feedback. We will review your feedback soon.

Previous Post Next Post